শিশুদের শেখার ও নিজেদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য ১০০টি স্বাস্থ্য বার্তা হল ৮-১৪ বছর বয়সী বাচ্চাদের উদ্দেশ্যে তৈরী করা সহজ, নির্ভরযোগ্য স্বাস্থ্য শিক্ষা বার্তা। তাই এতে ১০-১৪ বছর বয়সী কিশোরকিশোরী অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আমরা মনে করি যে এটা বিশেষভাবে সহায়ক এবং গুরুত্বপূর্ণ যে ১০-১৪ বছর বয়সী এই সমস্ত ছেলে-মেয়েদের তথ্যগুলো দেওয়া জরুরী কারন এই বয়সের ছেলে-মেয়েরা সাধারণত তাদের পরিবারের ছোটোদের যত্ন নিয়ে থাকে। এছাড়া, তারা যেভাবে নিজেদের পরিবারকে সহায়তা করছে, সেটাকে স্বীকৃতি দেওয়া এবং প্রশংসা করা প্রয়োজন।

স্বাস্থ্য সম্পর্কে ১০টি প্রধান বিষয়ের প্রত্যেকটির জন্য ১০টি করে বার্তা নিয়ে এই ১০০টি বার্তা তৈরি করা হয়েছে। বিষয়গুলি হল: ম্যালেরিয়া, ডায়রিয়া, পুষ্টি, ঠান্ডা কাশি এবং অসুস্থতা, অন্ত্রের কৃমি, পানি ও পরিচ্ছন্নতা, টিকাদান, এইচআইভি ও এইডস এবং দুর্ঘটনা, আঘাত এবং প্রাথমিক শৈশব বিকাশ। এই সহজ স্বাস্থ্য বার্তাগুলি বাবা-মা এবং স্বাস্থ্য-বিষয়ক শিক্ষকেরা বাড়িতে, স্কুলে, ক্লাবে এবং চিকিৎসালয়ে শিশুদের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করতে পারবেন।

এখানে বিষয় ১-এর ১০টি বার্তা রয়েছে: বাচ্চাদের পরিচর্যা করা

  1. গেম খেলুন, জড়িয়ে ধরুন, কথা বলুন, শিশুদের সাথে হাসি এবং গান গান যতটুকু সম্ভব।sa,, picture of a person coughing
  2. শিশু এবং ছোট শিশুরা রেগে যায়, ভয় পায় এবং সহজে তাদের চোখে পানি এসে পরে। তারা নিজেদের অনুভূতিগুলি ব্যাখ্যা করতে পারে না। সকল সময় সদয় থাকুন।
  3. অল্পবয়সি ছেলেমেয়েরা দ্রুত শেখে: কিভাবে হাঁটতে হয়, শব্দ করতে হয়, খেতে হয় এবং পান করতে হয়। তাদের সাহায্য করুন কিন্তু তাদের কিছু নিরাপদ ভুল ও করতে দিন!
  4. সব মেয়েরা এবং সব ছেলেরাই প্রত্যেকে গুরুত্বপূর্ণ। প্রত্যেকের সাথে ভাল আচরণ করুন, বিশেষ করে যারা অসুস্থ বা যারা প্রতিবন্ধী শিশু।
  5. ছোট ছেলেমেয়েরা তাদের চারপাশে যা ঘটে তাই শিখে নেয়। নিজের যত্ন নিন, তাদের সামনে ভাল আচরণ করুন এবং তাদের ভাল পথ দেখান।
  6. যখন ছোটো শিশুরা কাঁদে, তার একটি কারণ (ক্ষুধা, ভয়, ব্যথা) থাকে। কারণটি খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন।
  7. ছোট শিশুদের বিদ্যালয়ে শিক্ষায় সাহায্য করতে সংখ্যার খেলা এবং শব্দের খেলা, রং করা এবং আঁকতে শেখান। তাদের গল্প বলুন, গান গেয়ে শোনান এবং নেচে দেখান।
  8. একটি দলে, প্রত্যক্ষ করুন এবং নোটবুকে লিখে রাখুন কিভাবে বাচ্চারা বড় হয় এবং কখন তারা প্রথম কথা বলে, হাঁটে।
  9. প্রাপ্তবয়স্কদের যত্নদাতা এবং বয়স্ক বাচ্চাদের সাহায্য করে রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে শিশু ও ছোট ছেলেমেয়েদের পরিষ্কার (বিশেষ করে হাত ও মুখ) পরিষ্কার করে রাখুন, নিরাপদ পানি পান করুন এবং প্রচুর পরিমাণে খাবার খান।
  10. শিশু এবং ছোট শিশুদের প্রতি যত্নশীল হউন কিন্তু নিজের সম্পর্কে ভুলবেন না। আপনিও খুব গুরুত্বপূর্ণ।

এই স্বাস্থ্য বার্তাগুলি বিশেষজ্ঞ স্বাস্থ্য শিক্ষাবিদ ও চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের দ্বারা পর্যালোচনা করা হয়েছে এবং এগুলো ওআরবি স্বাস্থ্য ওয়েবসাইটেও পাওয়া যায়: http://www.health-orb.org.

শিশুরা যাতে বিষয়টি আরো ভালোভাবে বুঝে এবং সেটি অন্যদের মাঝে প্রচার করতে পারে তার জন্য কিছু হাতে কলমে কাজের কথা উল্লেখ করা হল।

শিশুদের জন্য পরিচর্যা: শিশুরা কি করতে পারে?

  • আমাদের নিজস্ব বার্তা তৈরি করি শিশুদের জন্য পরিচর্যা আমাদের নিজেদের শব্দে এবং আমাদের নিজেদের ভাষায়!
  • বার্তাগুলি মুখস্থ করি যাতে আমরা কখনো সেগুলি না ভুলতে পারি!
  • বার্তাগুলি অন্যান্য শিশুদের এবং পরিবারের সদস্যদের জানিয়ে দিন!
  • ছেলে এবং মেয়ে আলাদা দলে বিভক্ত করুন; ছেলেদের খেলতে দিন “মেয়েদের খেলা” এবং মেয়েদের খেলতে দিন “ছেলেদের খেলা”। তারপরে, উভয় দলকে বলুন খেলা নিয়ে আলাপ-আলোচনা করতে। উদাহরণস্বরূপ, তারা কি ছেলেদের বা মেয়েদের খেলা এই নামকরণ মেনে নিয়েছে? কেন বা কেন নয়?
  • আলোচনা করুন ঘরে অথবা স্কুলে ‘ভাল’ এবং ‘খারাপ’ আচরণ কোনগুলো, এবং তাদের কেন এরকম বর্ণনা করা হয়।
  • তৈরী করুন পোস্টার অন্যদের প্রদর্শন করার জন্যে যে আপনারা এই বিষয়ে জানেন।
  • বাড়িতে, স্কুলে বা সম্প্রদায়ের দলগুলোতে – মোবাইল, ঝুনঝুনি, বিল্ডিং ব্লক, পুতুল, প্রাণী এবং ছবি বই ইত্যাদী খেলনা-তৈরি প্রতিযোগিতার আয়োজন করুন।
  • রোগ প্রতিরোধের সহজ পদক্ষেপ যেমন সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, টিকাদান এবং সুষম খাদ্য খাওয়ার মতো বিষয় প্রদর্শন করার জন্য অঙ্কন এবং পোষ্টার তৈরি করুন।
  • তৈরী করুন একটি ছোট নাটিকা – ছোট শিশুরা সেবাদানকারীদের সাথে খেলছে এর উপর। তারা, দু’জন মায়ের মধ্যেকার আালাপ অভিনয় করে দেখাতে পারে; একজন মা যে বিশ্বাস করে ছোট বাচ্চাদের চুপ থাকা উচিত এবং আরেকজন মা যিনি মজা করায় আস্থা করে! আবেগ/অনুভূতি অঙ্গভঙ্গি এবং মুখের অভিব্যক্তি মাধ্যমে মূকাভিনয়/অভিনয় করে দেখান। অন্যান্য শিশুরা বলবে ওটা কিসের অনুভূতি বা আবেগ।
  • জিজ্ঞেস করুন, বাবা-মা এবং দাদা-দাদী বা নানা-নানীকে, কেন এবং কি কারণে বাচ্চারা কাঁদে বা হাসে এবং ফলাফল ক্লাসের সবার সাথে ভাগাভাগি করুন।
  • একটি শ্রেণী বা দল স্থানীয় সম্প্রদায় থেকে একটি শিশুকে বেঁছে নিতে পারে। বাচ্চাটি কীভাবে বাড়ছে তা জানাতে তার মা প্রতিমাসে এই দলটি দর্শন করবেন এবং অভিজ্ঞতা ভাগ করবেন।
  • তৈরী করুন একটি গান যা বর্ণনা করবে, রোগ প্রতিরোধের সহজ ধাপসমূহ যেমন পরিচ্ছন্ন থাকা এবং নিরাপদ পানি পান করা। আর গানটি নিজের ভাইবোনের সাথে গান।
  • বড় বাচ্চারা নিজেদের বাবা-মায়ের সাক্ষাৎকারে জিজ্ঞেস করবে, ছোট বাচ্চাদের যত্ন নেয়ার সময় তাদের সবচে বড় বাধা কোনটি মনে হয়েছিলো, আরে সেটি দূর করতে সবচে বেশি সাহায্য করেছে কোন বিষয়টি।
  • একজন স্বাস্থ্য কর্মী কিংবা বিজ্ঞান শিক্ষককে জিজ্ঞেস করুন কিভাবে শিশুদের মস্তিস্ক বাড়ে।
  • বড় শিশুরা সম্প্রদায়ের বয়স্ক মুরুব্বীদের অনুরোধ করবে যেনো ওনারা বাচ্চাদের গান শেখায়, গল্প বলা এবং খেলা শেখায় আর বাচ্চাদের গান গেয়ে শোনায়।
  • শিশুরা প্রাপ্তবয়স্কদের জিজ্ঞাসা করতে পারে যে তারা কি ভাবছেন বাচ্চাদের রোগ থেকে বাঁচা বা প্রতিরোধ করা কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ?

বিস্তারিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন www.childrenforhealth.org অথবা clare@childrenforhealth.org.

বাংলা Home